ই বাংলা ডট টেক, প্রযুক্তির হাতেখড়ি হোক বাংলাতেই।

হ্যাকিং / সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক বাংলা প্রযুক্তির ব্লগ

জুমের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন না ফ্রিল্যান্সাররা!!

সরকারিভাবে ঢাকঢোল পিটিয়ে বাংলাদেশে জুম সার্ভিস এর উদ্বোধন করা হয় বৃহস্পতিবার। আইসিটি মন্ত্রণালয় থেকে ফ্রিল্যান্সারদের কনফারেন্সে জানানো হয় - "জুম ব্যবহার করে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা আরো দ্রুত এবং সহজে ক্লায়েন্টদের কাছ থেকে পেমেন্ট আনতে পারবেন"। 


তবে জুমের ইউজার এগ্রিমেন্ট বলছে ভিন্ন কথা। জুমের ইউজার এগ্রিমেন্ট অনুযায়ী যেকোন রকম ব্যবসায়ীক লেনদেন এবং সার্ভিসের বিনিময়ে পেমেন্ট করা নিষিদ্ধ। কেউ এই ধরণের লেনদেন করলে কর্তৃপক্ষ ইউজার একাউন্ট বন্ধ করে দেয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয় ইউজার এগ্রিমেন্টে। (https://www.xoom.com/user-agreement#restrictions) অতএব বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা তাদের ক্লায়েন্টদের কাছে থেকে পেমেন্ট নেয়ার জন্য জুম ব্যবহার করতে পারবেননা।




জুমের ইউজার এগ্রিমেন্ট এ স্পষ্ট ভাবেই বলে দেওয়া আছে এটা ব্যাবসায়িক কোন কাজের জন্য নয়। শুধুমাত্র বন্ধু কিংবা পরিবারের নিকট পেমেন্ট আদান - প্রদানের জন্য। এছাড়া কোন লেনদেন হলে জুম আইডি ব্লক করে দেওয়া হয়ে থাকে। 

কয়েকজন ফ্রিল্যান্সারের সাথে কথা বলে জানা গিয়েছে বিস্তারিত। তারা ক্ষোভ কন্ঠে জানান, - আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুমকে পেপালের সাথে মিলিয়ে ঘুলিয়ে একাকার করে ফেলেছেন। বিশ্বব্যাপী পেপাল বলতে পেপালের ই-ওয়ালেট সার্ভিসকে বোঝায়। অপরদিকে জুম সম্পূর্ণ সতন্ত্র একটা কোম্পানি ছিল যা কিছুদিন আগে পেপাল কিনে নিয়েছে। বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের পেপাল দরকার। কারণ ক্লায়েন্টরা বেশিরভাগ পেপাল ব্যবহার করে এবং পেপালে পেমেন্ট করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। বাংলাদেশে জুম-পেপাল কানেক্টিভিটির উদ্বোধন এবং ফ্রিল্যান্সারদের সাথে কনফারেন্স করা ছিল সম্পূর্ণ অযৌক্তিক এবং বিভ্রান্তিমূলক। 

বাংলাদেশে পেপাল প্রয়োজন, এবং তারা আশা করছেন আইসিটি মন্ত্রণালয় জুম দিয়েই নয় বরং পেপাল এর জন্যই পরবর্তীতে চেষ্টা অব্যহত রাখবেন।